কদু খেলে রেহাই মিলবে যেসব রোগ থেকে

কদু খাওয়া যে খাছ সুন্নতের অন্তর্ভুক্ত তা নিম্নোক্ত হাদীছ শরীফ দ্বারা সুস্পষ্টভাবেই প্রমাণিত হয়।

যেমন হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে উল্লেখ আছে “হযরত আনাস ইবনে মালিক রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত যে, জনৈক দর্জি ছাহাবী কিছু খাবার প্রস্তুত করে হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে দাওয়াত করলেন। আমিও হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে গেলাম। তিনি যবের রুটি আর কিছু শুরুয়া যাতে কদু ও শুকনা গোশত ছিল পরিবেশন করলেন। আমি দেখলাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি পেয়ালার চতুর্দিক থেকে বেছে বেছে কদু খাচ্ছেন। সে দিনের পর থেকে আমিও কদু খাওয়া পছন্দ করতে লাগলাম।” (বুখারী শরীফ)

পুষ্টিগুণে অনন্য সবজিগুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে কদু। সরুয়া, নিরামিষ, ভাজি কিংবা সালাদ হিসেবে খাওয়া যায় এটি। কদুর খোসা, পাতা সবই খাওয়ার যোগ্য।

প্রতি ১০০ গ্রাম কদুতে রয়েছে-

কার্বোহাইড্রেট- ২.৫ গ্রাম

প্রোটিন- ০.২ গ্রাম

ফ্যাট- ০.৬ গ্রাম

ভিটামিন সি- ৬ গ্রাম

ক্যালসিয়াম- ২০ মিলিগ্রাম

ফসফরাস- ১০ মিলিগ্রাম

পটাশিয়াম- ৮৭ মিলিগ্রাম

এছাড়াও রয়েছে খনিজ লবণ, ভিটামিন বি-১, ভিটামিন বি-২, আয়রন প্রভৃতি। এসব উপাদান আমাদের সুস্থতার জন্য ভীষণ প্রয়োজন। জেনে নিন নিয়মিত লাউ খাওয়ার সুফল।

প্রচুর ফাইবার থাকায় কদু খেলে ওজন হ্রাস পায়
কোষ্ঠকাঠিন্য, অশ্ব, পেট ফাঁপা প্রতিরোধে সহায়ক এই সবজি।
নিয়মিত কদু খেলে কিডনির কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।
দেহের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এটি।
নিদ্রাহীনতার সমস্যা থাকলে কদু খান প্রতিদিন। এটি ঘুমের সমস্যা দূর করবে।
কদুতে রয়েছে ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস যা অতিরিক্ত ঘামের সমস্যা দূর করে।
চুলের গোড়া শক্ত করে এবং চুল পেকে যাওয়ার হার কমায়।
উচ্চ রক্তচাপ আছে যাদের, তারা নিশ্চিন্তে খেতে পারেন কদু।
হার্টের সুস্থতায় কদুর জুড়ি নেই।

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন: