জলবায়ু পরিবর্তনে চাঁপাইনবাবগঞ্জে দেখা নেই অতিথি পাখির

অনলাইন ডেস্ক: শীতের আগমনের সাথে সাথে অতিথি পাখির আগমন ছিলো প্রকৃতির একটি স্বাভাবিক নিয়ম। কিন্তু  আশংকাজনক হারে কমেছে অতিথি পাখির আগমন। চলতি মৌসুমে অতিথি পাখি আসেনি বললেই চলে।

এর কারন হিসেবে জলবায়ু পরিবর্তন ও খাদ্যের অভাব, শব্দ দূষন এবং পাখি শিকারকেই দায়ি করছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, নিরাপদ আশ্রয়স্থল না থাকার কারনেই অতিথি পাখিদের আগমন দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, শীতকালীন ঋতুতে ইউরোপসহ বিভিন্ন দেশ বরফে ঢাকা পরে। তাই অতিথি পাখিগুলো বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পরে। যেকারণে আমাদের দেশেও বালুহাঁস, বিদেশী পানকৌড়ি, গাঙ্গচিল, টিয়া, বক, শালিকসহ বিভিন্ন অতিথি পাখি শীত মৌসুমে এসে থাকে।

বিশেষ করে গোমস্তাপুর ও ভোলাহাট উপজেলার হাওড়, বিল, খালে তাদেও আবাস স্থান হিসেবে বেছে নেয় পাখিরা। কিন্তু হটাৎ করে অতিথি পাখিদের অবাধ বিচরণ সংকুচিত হয়ে আসছে। পদ্মাসহ মহানন্দা, বড়বড় পুকুর ও গোমস্তাপুর অঞ্চলের বড়বড় বিলে অতিথি পাখি এসে থাকত। খাবার স্বল্পতার জন্য আগমনও কমে গেছে।

গোমস্তাপুর ও ভোলাহাট উপজেলার বিভিন্ন মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছে, মাত্র এক দশক আগেও পুরো শীত মৌসুম জুড়েই বিভিন্ন খাল বিল মুখোরিত থাকত হাজারো পাখির কলকাকলিতে। কিন্তু এক শ্রেণির পাখি শিকারীর কারণে এ সব বিল থেকে পাখিরা উধাও হয়ে গেছে।

অতিথি পাখি না আসা সম্পর্কে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন অধ্যাপক বলেন, সঠিক পরিবেশ না থাকা ও খাদ্য না পাওয়ার জন্য অতিথি পাখিরা এসেও অন্যত্র চলে যাচ্ছে। অনেকেই দূষণযুক্ত পরিবেশকেও দায়ি করেছেন। এ বিষয়ের ব্যাপাওে বড় ধরণের গবেষণার মাধ্যমে এর সঠিক উত্তর পাওয়া যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।