ইন্টারনেটে কমলেও তথ্যপ্রযুক্তি সেবায় খরচ বাড়ছে

আসছে বাজেটে তথ্যপ্রযুক্তি সেবার ওপর নতুন শুল্ক কাঠামো ঘোষণা করতে যাচ্ছে সরকার। এর ফলে তথ্যপ্রযুক্তি সেবার ওপর সম্পূরক শুল্ক দশমিক ৫ শতাংশ বাড়বে। পাশাপাশি ইন্টারনেট সেবার ওপর আরোপিত ১৫ শতাংশ করও কিছুটা কমবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড-এনবিআরের সূত্র বলছে, এই খাতে ভ্যাটের অনেকগুলো স্তর কমিয়ে পাঁচটিতে নামিয়ে আনার পরিকল্পনা করছে এনবিআর। সে কারণেই কোনো কোনো ক্ষেত্রে ভ্যাট একটু আধটু হ্রাস-বৃদ্ধির ঘটনা ঘটছে।

জানা গেছে, বর্তমানে যে কোনো তথ্যপ্রযুক্তি সেবার ওপর সাড়ে ৪ শতাংশ ভ্যাট রয়েছে। এ হার বাড়িয়ে ৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করতে যাচ্ছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। আগামীকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট পেশ করবেন তিনি।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, যতগুলো সেবার ওপর সাড়ে ৪ শতাংশ ভ্যাট বিদ্যমান রয়েছে, তার সবগুলোকেই বাড়িয়ে ৫ শতাংশ করার প্রস্তাব আসছে।

অবশ্য ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের দীর্ঘদিনের আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে তথ্যপ্রযুক্তি সেবার ওপর ভ্যাট বাড়লেও ইন্টারনেট সেবার ওপর বিদ্যমান ১৫ শতাংশ ভ্যাট কিছুটা কমানোর প্রস্তাব থাকছে এই এবারের বাজেটে। তবে এই হারটা কত তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

একটি সূত্র জানিয়েছে, এই ইন্টারনেটের ওপর ভ্যাট পুরোপুরি উঠিয়ে নেয়ার প্রস্তাব থাকলেও এই হার ১০ শতাংশে নামিয়ে আনা হতে পারে।

ইন্টারনেটের ওপর ভ্যাট কমলেও তথ্যপ্রযুক্তি সেবার ওপর ভ্যাট বাড়লে গ্রাহক পর্যায়েও সেবার খরচ বাড়তে পারে আগাম শঙ্কা প্রকাশ করেছেন খাত সংশ্লিষ্টরা।

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন: