গাঁজার চাষ ছাদবাগানে

অনলাইন ডেস্ক: নিজস্ব কিংবা ভাড়া বাসাবাড়িতে এক চিলতে ছাদ থাকলে বসবাসকারীদের মধ্যে অন্যরকম উচ্ছ্বাস কাজ করে। এই উচ্ছ্বাস চাঁদনী রাতে ছাদে বসে জ্যোৎস্না পোহানোর অথবা ছাদের কোণে সবুজ বাগান গড়ে তোলার। সিলেট নগরীর শাহপরান থানাধীন খাদিমপাড়ার আবুল কালাম আজাদও নিজ বাড়ির ছাদে গড়ে তুলেছিলেন ‘সবুজ বাগান’। তবে অন্যরা ফলজ বৃক্ষ কিংবা শাক-সবজির বাগান গড়লেও আজাদ গড়ে তুলেছিলেন গাঁজার বাগান! দীর্ঘদিন ধরে ‘রুদ্ধদ্বার’ এই বাগানের গাঁজা দিয়েই নিজের সেবন চাহিদা মিটিয়ে আসছিলেন তিনি। তবে শেষ রক্ষা হয়নি, র‌্যাবের জালে আটকা পড়েছেন আজাদ।

র‌্যাব সূত্রে জানা গেছে, সিলেট নগরীর শাহপরান থানার খাদিমপাড়ার মৃত আবদুল জলিলের ছেলে আবুল কালাম আজাদ (৩৫)।

খাদিমপাড়ার ৪ নং ওয়ার্ডের ৭ নং রোডে তার বাড়ি। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সোমবার দিবাগত রাত ১০টার দিকে আজাদের বাড়িতে অভিযান চালায় র‌্যাব। অভিযানে একতলা বাড়ির ছাদ থেকে জব্দ করা হয় চারটি গাঁজার গাছ। যত্ন করে এসব গাছ নিজের ছাদে লাগিয়েছিলেন আজাদ। এ সময় আজাদকেও গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর আবুল কালাম আজাদকে জিজ্ঞাসাবাদ করে র‌্যাব। র‌্যাব-৯ এর এএসপি শামীম আনোয়ার জিজ্ঞাসাবাদের বরাতে জানান, আবুল কালাম আজাদ ১৬ বছর বয়স থেকে গাঁজা সেবন শুরু করে।

দীর্ঘদিন গাঁজা সেবন করার একপর্যায়ে তার মনে হয় যে অনেক টাকা নষ্ট হয়ে গেছে। সে চিন্তা থেকেই আজাদ নিজের বাড়ির ছাদে গাঁজার গাছ লাগানোর পরিকল্পনা করেন। তবে তার বাবা বেঁচে থাকায় পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে সময় লাগে আজাদের। র‌্যাব কর্মকর্তা শামীম আনোয়ার আরও জানান, বছরখানেক আগে আজাদের বাবা মারা যান।

এরপর আজাদ বাড়ির ছাদে গাঁজার গাছ লাগান। সেই গাছ যাতে কারও চোখে না পড়ে, সেজন্য ছাদে ওঠার পথ বন্ধ করে দেন তিনি। তারপরও যদি কেউ ছাদে ওঠেই পড়ে, সেক্ষেত্রে ‘অনাহূত অতিথিকে’ বিপদে ফেলতে ছাদের মধ্যে বিদেশি কুকুর পোষেন আজাদ। তিনি নিজে বাড়ির একটি আমগাছ বেয়ে বিশেষ কায়দায় ছাদে ওঠতেন। র‌্যাব জানায়, গ্রেফতারকৃত আজাদকে শাহপরান থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। আলামত হিসেবে গাছগুলো সংরক্ষণ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন:

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp
Share on email
Share on print

আরও পড়ুন:

সর্বশেষ